Basic Ali Episode 8

কমেডি সিরিজ বেসিক আলী ৮: ডিটেক্টিভ বেসিক | Bangla Comedy Natok Basic Ali 8 তালিব আলী আর ম্যাজিকের আচরণ সন্দেহজনক; তাই বেসিক আলী ডিটেক্টিভের ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছে| কিন্তু নজরদারি করা কি এতই সহজ? বিশেষ করে হিল্লোল আর নেচার এর মতো মানুষদের অত্যাচারে ডিটেক্টিভগিরি করা খুব কঠিন… Basic Ali comedy series first season concludes with the 13th episode with this installment. It is categorised as Bangla Comedy Natok 2017 on YouTube.

বেসিক আলী পর্ব ৭: খাদ্য সঙ্কট

ভোজন রসিক তালিব আলীকে ডাক্তার ডায়েট কন্ট্রোল করতে বলেছে; তাই ওর তিন বেলার খাবার দুটো করে রুটি, পেঁপে ভাজি আর একটা আপেল| কিন্তু তার সামনে বসে পরিবারের সবাই মলির মজার রান্না খাবে– তা হবে না! তালিব তাই তার বুদ্ধি বের করেছে..

বেসিক আলী সিরিজ দ্বিতীয় সিজন আসবে অক্টোবরে

কার্টুন চরিত্র বেসিক আলীর লাইভ অ্যাকশন কমেডি সিরিজ চালু হয়েছে জুন মাসে| এর প্রথম ১৩ পর্ব শেষ হবে অক্টোবরের মাঝামাঝি|
প্রথম সিজন নিয়ে দর্শকদের নানা অভিযোগ– তার মধ্যে অন্যতম ছিল পর্ব গুলো বেশি ছোট হয়ে গেছে– ১০ মিনিট দৈর্ঘ দেখার আগেই শেষ হয়ে যায়| তাই এবার দ্বিতীয় সিজনের পর্বগুলো দৈর্ঘে প্রায় ২০ মিনিটের হবে|
এছাড়া বেসিক স্টুডিওস সিরিজ টি টেলিভিশন চ্যানেলে পাশাপাশি প্রকাশ করার উদ্যোগ নিয়েছে|

আগের বারের মতোই সিরিজের কাহিনীগুলো লিখেছে শাহরিয়ার আর ইনাম| তবে এই দফায় পাল্টেছে ডিরেক্টর| তরুণ ডিরেক্টর কাজল আরেফিন অমির নির্দেশনায় শুটিং শুরু হবে সেপ্টেম্বরে ঈদের ছুটির পর পর|

জনপ্রিয় কার্টুন স্ট্রিপ বেসিক আলী কমেডি সিরিজ ইন্টারনেটে

বেসিক আলীর পছন্দ খাওয়া, আড্ডা আর ঘুমানো| গ্যাস বিল দেয়ার মতো বিরক্তিকর কাজ ওর কি মানায়?

বেসিক আলীর ১৩ পর্বের প্রথম দফার সিরিজ অভিনয় করতে সবচেয়ে বেশি চাপ নিতে হয়েছে নাম ভূমিকার অভিনেতা তৌসিফ মাহবুবকে| কারণ সে শুধু সবচেয়ে বেশি দৃশ্যে অভিনয় করেনি, তাকে সবচেয়ে বেশি বিভিন্ন মেকআপ নিতে হয়েছে! একবার ফকির, একবার পাখিওয়ালা, একবার অপিরিচিত ব্যাক্তি… এমনকি একবার একটি মেয়ের মেকআপ নিয়েছিল বেসিক!
যখন মেয়ের মেকআপ নিয়ে তৌসিফ শুটিং করছিলো, তখন এলাকার কিছু পোলাপান শাই করে গাড়ি নিয়ে রাস্তায় হার্ড ব্রেক করে একযোগে “খ্যাক খ্যাক” করে হেসে আবার শাই করে চলে গিয়েছিলো; এক মিনিট পর আবারো ওরা ঘুরে এসে একই ভাবে আবার “খ্যাক খ্যাক” হাসি দিয়ে চলে যায়!

খাদ্য মৎসব
বেসিক আলীর কয়েকটা পর্বে খাওয়া দাবার দৃশ্য আছে– যেখানে নেহারি, পরোটা, ভুনা মাংস, কাবাব, পুডিং, ফল সহ আরো অনেক কিছু আছে! সবার নিশ্চই জানা আছে যে শুটিংয়ের সময়ে এসব খাবারকে “প্রপ” বলে! শুটিং শেষ হওয়া পর্যন্ত প্রপ থাকতে হবে!
এখন কোনো দৃশ্যই এক দফাতেই রেকর্ডিং শেষ হয় না; এক দৃশ্য কয়েকবার অভিনয় করতে হয়|
যখন একটা এমন খাবার দৃশ্য শুট হচ্ছে, তখন বাজে রাত ৮ টা; সবার পেটেই খিদা– তার ওপর এসব কাবাব-নেহারীর গন্ধ!
অ্যাকশন বলার সাথে সাথে অভিনেতারা চরম উৎসাহের সাথে খাওয়া শুরু করলো– খেতে খেতে খাবার শর্ট হয়ে যেতে থাকলো; আর তখন ডিরেক্টরের অনুরোধ– ভাই দৃশ্যটা শেষ হওয়া পর্যন্ত আস্তে আস্তে খান; না হয় বাইরে থেকে আবার খাবার কিনে আনতে অনেক সময় লাগবে!
তৌসিফ সবচেয়ে বেশি খেয়েছিলো!

সাবরিনার স্ট্যান্ট
তের পর্বের প্রথম দফার বেসিক আলী সিরিজের একটা বড় রোমান্টিক কমেডি সিকোয়েন্স হচ্ছে বেসিক আর রিয়ার মধ্যে! আমরা যখন কাহিনী সাজিয়েছি তখন সেটা কিভাবে শুট করবো তা নিয়ে ভাবিনি; সেই দায়িত্বটা ডিরেক্টরের|
শুটিংয়ের দ্বিতীয় দিন এমন একটি দৃশ্যের জন্য ডিরেক্টর সায়েদ রিংকু একটা পার্কে বিশাল একটা শুটিং ক্রেন নিয়ে হাজির; এই ক্রেন থেকে ঝুলবে সাবরিনা ওরফে রিয়া– হাতে থাকবে কয়েক ডজন গ্যাস বেলুন!
সাবরিনার ড্রেস থেকে তার আর বেল্ট দিয়ে বেঁধে প্রথম যখন তাকে ওড়ানো হলো, তাতে তার ভড়কে যাওয়াই স্বাভাবিক! আর ভড়কে থাকলে সে অভিনয় করবে কি করে? তাই সাবরিনাকে বেশ কয়েকবার উড়তে হলো হাতে বেলুন নিয়ে! এবং এক পর্যায়ে রিয়া বেশ বেপারটাতে অভ্যস্ত হয়ে গেলো

কমেডি সিরিজ বেসিক আলী-১: ফাঁকিবাজ

বেসিক আলীর পছন্দ খাওয়া, আড্ডা আর ঘুমানো| গ্যাস বিল দেয়ার মতো বিরক্তিকর কাজ ওর কি মানায়?

বেসিক আলীর ১৩ পর্বের প্রথম দফার সিরিজ অভিনয় করতে সবচেয়ে বেশি চাপ নিতে হয়েছে নাম ভূমিকার অভিনেতা তৌসিফ মাহবুবকে| কারণ সে শুধু সবচেয়ে বেশি দৃশ্যে অভিনয় করেনি, তাকে সবচেয়ে বেশি বিভিন্ন মেকআপ নিতে হয়েছে! একবার ফকির, একবার পাখিওয়ালা, একবার অপিরিচিত ব্যাক্তি… এমনকি একবার একটি মেয়ের মেকআপ নিয়েছিল বেসিক!
যখন মেয়ের মেকআপ নিয়ে তৌসিফ শুটিং করছিলো, তখন এলাকার কিছু পোলাপান শাই করে গাড়ি নিয়ে রাস্তায় হার্ড ব্রেক করে একযোগে “খ্যাক খ্যাক” করে হেসে আবার শাই করে চলে গিয়েছিলো; এক মিনিট পর আবারো ওরা ঘুরে এসে একই ভাবে আবার “খ্যাক খ্যাক” হাসি দিয়ে চলে যায়!

খাদ্য মৎসব
বেসিক আলীর কয়েকটা পর্বে খাওয়া দাবার দৃশ্য আছে– যেখানে নেহারি, পরোটা, ভুনা মাংস, কাবাব, পুডিং, ফল সহ আরো অনেক কিছু আছে! সবার নিশ্চই জানা আছে যে শুটিংয়ের সময়ে এসব খাবারকে “প্রপ” বলে! শুটিং শেষ হওয়া পর্যন্ত প্রপ থাকতে হবে!
এখন কোনো দৃশ্যই এক দফাতেই রেকর্ডিং শেষ হয় না; এক দৃশ্য কয়েকবার অভিনয় করতে হয়|
যখন একটা এমন খাবার দৃশ্য শুট হচ্ছে, তখন বাজে রাত ৮ টা; সবার পেটেই খিদা– তার ওপর এসব কাবাব-নেহারীর গন্ধ!
অ্যাকশন বলার সাথে সাথে অভিনেতারা চরম উৎসাহের সাথে খাওয়া শুরু করলো– খেতে খেতে খাবার শর্ট হয়ে যেতে থাকলো; আর তখন ডিরেক্টরের অনুরোধ– ভাই দৃশ্যটা শেষ হওয়া পর্যন্ত আস্তে আস্তে খান; না হয় বাইরে থেকে আবার খাবার কিনে আনতে অনেক সময় লাগবে!
তৌসিফ সবচেয়ে বেশি খেয়েছিলো!

সাবরিনার স্ট্যান্ট
তের পর্বের প্রথম দফার বেসিক আলী সিরিজের একটা বড় রোমান্টিক কমেডি সিকোয়েন্স হচ্ছে বেসিক আর রিয়ার মধ্যে! আমরা যখন কাহিনী সাজিয়েছি তখন সেটা কিভাবে শুট করবো তা নিয়ে ভাবিনি; সেই দায়িত্বটা ডিরেক্টরের|
শুটিংয়ের দ্বিতীয় দিন এমন একটি দৃশ্যের জন্য ডিরেক্টর সায়েদ রিংকু একটা পার্কে বিশাল একটা শুটিং ক্রেন নিয়ে হাজির; এই ক্রেন থেকে ঝুলবে সাবরিনা ওরফে রিয়া– হাতে থাকবে কয়েক ডজন গ্যাস বেলুন!
সাবরিনার ড্রেস থেকে তার আর বেল্ট দিয়ে বেঁধে প্রথম যখন তাকে ওড়ানো হলো, তাতে তার ভড়কে যাওয়াই স্বাভাবিক! আর ভড়কে থাকলে সে অভিনয় করবে কি করে? তাই সাবরিনাকে বেশ কয়েকবার উড়তে হলো হাতে বেলুন নিয়ে! এবং এক পর্যায়ে রিয়া বেশ বেপারটাতে অভ্যস্ত হয়ে গেলো