শাহরিয়ারের “বেসিক” পরিকল্পনা

বেসিক আলী একদিনে জনপ্রিয় হয়ে ওঠে নি| প্রথম যখন এটা প্রকাশ হয় দশ বছর আগে, তখন হয়তো অনেকে ভাবে নি যে এই কার্টুন এতো বছর ধরে প্রতিদিন বের হবে| আর আমি কার্টুন এঁকে মজা পাই– তাই আঁকতে থাকি বছরের পর বছর|

তবে আমি টের পাই কখন এটা জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে| ২০০৮ সাল থেকে বেসিক আলীর বই বের হচ্ছে– এবং এই বই এর বিক্রি দেখে সহজেই আমি বুঝতে পারি এই কার্টুনের গ্রহণযোগ্যতা| সেই সাথে বুঝতে পারি যে আমি ঠিক পথে আগাচ্ছি|

বিগত দশ বছরে আমার সাথে তিন-চারজন যোগাযোগ করেছিল বেসিক আলীকে টিভি নাটকে রূপান্তর করার জন্য| একটা পুরানো অভিজ্ঞতা থেকে আমি কাউকে দিয়ে আমার কমেডি তৈরী করতে আগ্রহী ছিলাম না| আমি যদি অন্য দশটা কাজ থেকে একটা একটু ভালো পারি– সেটা হচ্ছে কমেডি ডেলিভার করা| আমি বহু আগেই ঠিক করেছি- বেসিক আলী কে নিয়ে যদি অন্য কিছু করতে হয়– তাহলে সেটা হতে হবে আমার হাত দিয়ে| আমি যদি সেটা ভালো করে না করতে পারি– তাহলে কাউকে দোষ দেব না|

গত নভেম্বরে বেসিক আলী ১০ বছর পূর্ণ করলো| তার কিছুদিন আগে থেকে আমি আমার পুরানো বন্ধু এবং দি ডেইলি স্টারের সহকর্মী ইনাম আহমেদকে খোঁচাচ্ছিলাম– চল বেসিক আলীকে একটা ইন্টারনেট সিরিজ এ পরিণত করি এবং সেটা ভালো হলে আমরা মাল্টিমিডিয়া প্লাটফর্মে আরো দুর্দান্ত কিছু করবো!

সেই থেকে আমরা বেসিক আলীর প্রকল্প শুরু করলাম| এর মধ্যে যোগ হলো আমাদের আরেক বন্ধু মারুফ কবির এবং আমরা বেসিক ষ্টুডিওস সৃষ্টি করলাম|
বেসিক ষ্টুডিওস দিয়ে আমরা প্রথমে বেসিক আলী তৈরী করছি– কিন্তু আমাদের লক্ষ্য আরো অনেক কিছু করা| আমাদের প্রকাশের মাধ্যম ইউটিউব আর প্রচার মাধ্যম ফেইসবুক, টুইটার আর আমাদের ওয়েব পেজ|

এখন প্রশ্ন হলো আমরা কেন টিভিতে না গিয়ে ওয়েবে যাচ্ছি?

আমরা একটু “কন্ট্রোল ফ্রিক”| টিভিতে বর্তমানে অনুষ্ঠানের চেয়ে বিজ্ঞাপন বেশি গুরুত্বপূর্ণ| টিভি অনুষ্ঠান নির্মাতাদের ঠিক মতো টাকাও দেয় না| আমাদের অনুষ্ঠানে ওরা যখন খুশি বিজ্ঞাপন দিলে সেটা আনন্দের বিষয় নাও থাকতে পারে| আবার ওয়েব থেকে আবার এমন কোনো আয় হয়না যেটা দিয়ে ভালো কোনো অনুষ্ঠান তৈরী করা যায়| ওয়েব থেকে কনটেন্ট চুরি হওয়া আরেক বড় ঝুঁকি| কিন্তু আমরা চেষ্টা করে দেখি| মানুষ যদি ভালো কনটেন্ট পছন্দ করে এবং আমাদের পাশে থাকে– আমাদের প্রয়াস নিশ্চই সফল হবে| আর সফল না হলে আমরা বন্ধ হয়ে যাবো!

আমি জানি আমার বই পাইরেসি হয়| কিছু শেয়ারিং ফোরামে আমি নিজে গিয়ে আহবান করেছিলাম তারা যেন আমার বই পাইরেসি না করে– কারণ আমার বই সহজলভ্ভো আর আমি এখনো মরিনি! তার কিছু কিছু রিঅ্যাকশন ছিল এমন, “আপনি অনেক টাকা বানান!” আমি এতো অবাক হয়ে যাই– বই বানিয়ে অনেক টাকা বাংলাদেশে হয়তো হুমায়ুন আহমেদ করেছে– কিন্তু সেটা আর কত টাকা? একজন লেখক বা কার্টুনিস্টের ক্ষতি আপনারা এই কারণে করছেন না যে তারা অনেক টাকা বানিয়েছে– আপনারা করছেন, কারণ আপনারা সহজেই কপি করার সুযোগ পাচ্ছেন|  ক্ষতি করতে চান তো গিয়ে চোর বাটপার ঘুষখোরদের করুন! কিন্তু কে শোনে কার কথা– ওখানে পাইরেসি হয়েই যাচ্ছে!
আপনাদের যদি বেসিক আলী ভালো লাগে এবং এর ওয়েব সিরিজ যদি আমি ফ্রি আপনাদের দিতে পারি, আমি মনে করি আপনারা আমার পাশে থাকবেন!
আমার বিশ্বাস, বেসিক ষ্টুডিওস আপনাদের সম্পূর্ণ ভিন্ন স্বাদের কমেডি সিরিজ দিতে সফল হবে!

One Reply to “শাহরিয়ারের “বেসিক” পরিকল্পনা”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *